‘মিডিয়া পারলে আমাকে আজই বিয়ে দেয় রনবীরের সঙ্গে’

by News Room

ডেস্ক: গত রোববার আইএসএল-এর ওপেনিং সেরিমনিতে কিন্তু সল্ট লেক স্টেডিয়ামে রনবীর কাপুরের সঙ্গে কলকাতার মানুষ আপনাকেও এক্সপেক্ট করেছিল…
হ্যাঁ, আমি শুনলাম কলকাতায় আইএসএল ওপেনিং সেরিমনি ওয়াজ ফ্যান্টাস্টিক কিন্তু আমার কাজ ছিল সে দিন, তাই আসতে পারিনি।  মিসড্ ইট। কিন্তু টিভিতে দেখলাম।

আপনার ‘ব্যাং ব্যাং’য়ের কো-স্টার হৃতিক রোশন তো ছিলেন সে দিন মাঠে…
ইয়েস, রনবীরের মতো হৃতিকও ফুটবল নিয়ে পাগল। শুধু ফুটবল কেন, যেকোনো খেলা নিয়ে হৃতিক পাগল। আর এখন ও ডিজার্ভ করে একটা ছুটি। ‘ব্যাং ব্যাং’ মানুষের পছন্দ হয়েছে। ছবিটা হিট হয়েছে। আর কী চাই! আমি তো শুনলাম ইস্টার্ন ইন্ডিয়াতে খুব বড় হিট ‘ব্যাং ব্যাং’। আমরা ভীষণ খুশি।

‘ব্যাং ব্যাং’ বললে সবাই হৃতিকের শরীর খারাপের কথা বলে। কিন্তু অনেকেই জানে আপনারও তো সাঙ্ঘাতিক শরীর খারাপ হয়েছিল শ্যুটিংয়ের সময়।
আই অ্যাম গ্ল্যাড ইউ আস্কড দিস। ইয়েস, ছবিটার শিমলা শ্যুটিংয়ের ঠিক আগে আমার স্লিপ ডিস্ক হয়। শুধু পিঠ নয়, আমার গোটা স্পাইন ওয়াজ অ্যাফেক্টেড। সঙ্গে প্রচণ্ড মাথাব্যথা। এত ব্যথা আমি কোনো দিন সহ্য করিনি। এমনকী সেটে একজন ফিজিওথেরাপিস্ট আমার সঙ্গে থাকত সব সময়। এখন অনেক বেটার আছি কিন্তু ব্যথাটা মাঝেমধ্যেই হয়। ডাক্তাররা বলছেন আমাকে সারাজীবন কেয়ারফুল থাকতে হবে পিঠের ব্যথার জন্য।

আচ্ছা, ক্যাটরিনা কাইফ সম্বন্ধে মানুষের কৌতূহল প্রচুর। কিন্তু আপনাকে তো বিশেষ দেখাই যায় না মিডিয়াতে?
হ্যাঁ, আমি আমার ফিল্ম রিলিজের সময়ই একমাত্র মিডিয়ার সঙ্গে কথা বলি। তাছাড়া বলতে পারেন মিডিয়া সম্বন্ধে একটু সাবধানী।

সেটা কেন?
অ্যাকচুয়ালি, একটা সময় কিন্তু আমি প্রেসের সঙ্গে কথা বলতাম। কিন্তু তারপর দেখলাম এমন কিছু মিথ্যে লেখা হচ্ছে আমার বিষয়ে যে, আমি নিজেকে একেবারে সরিয়ে নিতে বাধ্য হয়েছি।

বুঝলাম। কিন্তু তা বলে টুইটার-ফেসবুকেও তো নেই আপনি। বলিউডের সব বড় স্টারই টুইটার ব্যবহার করেন।
হ্যাঁ, কিন্তু আমার ভালো লাগে না। দেখেছি ফলোয়ার্স হয়েও লোকে আপনাকে গালাগালি দিচ্ছে। যদি গালাগালিই দেবে, তা হলে ফলো করবে কেন? এ ছাড়াও দেখছি নানা রকম ভালোগার জিনিস লেখা হয় আপনাকে উদ্দেশ করে। আমি ও সবের মধ্যে থাকতে চাই না।

ক্যাটরিনা, আপনার সমসাময়িক হিরোইন মানে প্রিয়াঙ্কা হোক বা দীপিকা—তারা কিন্তু অনেক মিনিংফুল চরিত্রে অভিনয় করছেন…
যেমন?

প্রিয়াঙ্কা ‘মেরি কম’ করেছেন। দীপিকা ‘ফাইন্ডিং ফ্যানি’র মতো ছবি করেছেন। সেখানে আপনার উপস্থিতি তো অ্যাকশন ছবিতে গ্ল্যামারাস রোলে। দিনের পর দিন এটা করতে খারাপ লাগে না?
আমার মনে হয়, গ্ল্যামারাস রোল মানেই সেটা মিনিংফুল নয় এই ভাবনাটাই ভুল। আই ফিল আমার স্ক্রিপ্ট সেন্স ইজ ফ্যান্টাস্টিক। না হলে এত বড় বড় হিট ছবির অংশ আমি হতে পারতাম না। আর কমার্শিয়াল হিন্দি অ্যাকশন ছবিতে হিরোইন মানেই তো গ্ল্যামারাস। সেটা হতে আমার কোনো আপত্তি নেই।আর যদি অভিনয়ের স্কোপের কথা বলেন, তা হলে ‘যব তক হ্যায় জান’য়ে অভিনয়ের যথেষ্ট স্কোপ ছিল….

হ্যাঁ, কিন্তু নারীকেন্দ্রিক রোল তো ছিল না?
…এখানে আপনাকে একটা কথা বলি। আপনি যেগুলোকে শুধু অ্যাকশন ফিল্ম বলছেন আমি সেগুলোকে অ্যাকশন কাম লাভ স্টোরি বলছি। সেটা ‘এক থা টাইগার’ই হোক কী ‘ধুম থ্রি’। তাই আমার কাছে ব্যাপারটা পরিষ্কার। আর ফিমেল সেন্ট্রিক রোলের অফার আমার কাছে রোজ আসে। যদি ইচ্ছে হয় নিশ্চয়ই করব।

আপনি তিনজন খানের সঙ্গেই কাজ করেছেন। হৃতিকের সঙ্গে আপনার কেমিস্ট্রিটা ফাটাফাটি। রনবীর আপনার ‘স্পেশাল ফ্রেন্ড’। এই পাঁচ জনের একটা রিপোর্ট কার্ড তৈরি করুন না।

হা হা হা। সবাই ভীষণ ভালো। এভরিবডি ইজ এক্সেলেন্ট (হাসি)।

এটা কোনো উত্তর হলো?

আরে আমি এমন কিছু বলতেই চাই না যা কালকে সকাল থেকে সব টিভি চ্যানেলের ব্রেকিং নিউজ হয়ে যায়। তবে সবার সঙ্গেই আমার আলাদা আলাদা ইকোয়েশন আছে। সালমান আমার অসম্ভব ভালো বন্ধু। ওর সঙ্গে সেটে ইয়ার্কিও মারতে পারি। কিন্তু আমির কি শাহরুখের সঙ্গে সিরিয়াস থাকি। আর হৃতিক, রনবীরের সঙ্গে সেটে প্রচুর আড্ডা মারি।

শুনেছিলাম ‘বাং ব্যাং’য়ে হৃতিকের সঙ্গে নাচতে আপনি নাকি প্রচুর রিহার্সাল করতেন?
(চোখে মেরে) আপনাকে একটা কথা জিজ্ঞেস করি?

করুন।
হৃতিককে একবারও জিজ্ঞেস করলেন না তো আমার সঙ্গে নাচতে ওকে কত বার রিহাসার্ল দিতে হয়েছে? হা হা হা। জোকস অ্যাপার্ট। সত্যি হৃতিকের সঙ্গে নাচতে গেলে আমাকে কেন, সবাইকেই রিহার্সাল করতে হবে। এবং যতই রিহার্সাল করুন না কেন ঠিক সেটে গিয়ে দেখবেন আপনার সব গুলিয়ে যাচ্ছে। দ্যাটস বিকজ হি ইজ সাচ আ ফ্যাবিউলাস ফ্যাবিউলাস ডান্সার। আমার মনে হয় না ওর মতো কেউ নাচতে পারে ইন্ডাস্ট্রিতে।

রনবীরও না?

হা হা হা। টিভির ব্রেকিং নিউজ হবে এমন কিছু আমি বলব না।

আচ্ছা ক্যাটরিনা কাইফের ইন্টারভিউ যখন, তখন রনবীর কাপুর তো একটা বড় টপিক?
ও ইয়েস। সেটার জন্য আমি প্রস্তুত (হাসি)।

শোনা যায়, রনবীর ওর জন্মদিনে আপনাকে প্রোপোজ করেছেন?
এই স্টোরিগুলো মিডিয়া কী ভাবে লেখে আমি জানি না। এটা নিয়ে আমি কথা বলিনি। রনবীর নিজেও কথা বলেনি। কিন্তু তাও এগুলো নিয়ে মিডিয়ার মাতামাতির শেষ নেই…

কিন্তু সবাই জানে আপনারা মোর দ্যান ‘গুড ফ্রেন্ডস’।

‘মোর দ্যান’টা মিডিয়ার ট্যাগ। অফ কোর্স আমরা দারুণ বন্ধু। রনবীর ইজ অ্যান অ্যামেজিং পার্সন। হি ইজ এ ফ্যাবিউলাস হিউম্যান বিয়িং।

রনবীরের সব চেয়ে ভালো কোয়ালিটি কী?
ওর কেয়ারিং নেচার। শুধু নিজের লোকেদের সঙ্গেই নয়, একদম যেকোনো স্ট্রেঞ্জারের সঙ্গেও রনবীর দাঁড়িয়ে কথা বলবে, ছবি তুলবে। এটা সচরাচর দেখা যায় না ইন্ডাস্ট্রিতে। দ্যাটস হিজ বেস্ট কোয়ালিটি (হাসি)।

আচ্ছা শেষ প্রশ্ন।  রনবীর আর আপনাকে নিয়ে এত স্পেকুলেশন, এত লেখালেখি তো কেবল একটাই ব্যাপার জানার জন্য। বিয়েটা কবে?
হা হা হা। মিডিয়া তো পারলে আমাকে আজকেই বিয়ে দেয় রনবীরের সঙ্গে। কিন্তু আগামী দু’বছর তো আমার নিজের জন্যই সময় নেই।

তার মানে এখনই বিয়ে নয়?

দেখুন এই মুহূর্তে হাতে অনেকগুলো ছবি রয়েছে। অনুরাগ বসুর ‘জগ্গা জসুস’ শেষের মুখে। সাইফের সঙ্গে ‘ফ্যানটম’ও প্রায় তাই। খুব শিগগিরই অভিষেক কাপুরের ‘ফিতুর’ বলে ছবিটা শুরু করব আদিত্য রায় কাপুর আর রেখার সঙ্গে। সব মিলিয়ে আমার দু’হাত ভরা কাজ। এই ছবিগুলো শেষ করি, তার পর তো ভাবব বিয়ে নিয়ে। তবে চিন্তা করবেন না। মিডিয়াকে ডাকব আমার বিয়েতে।– ওয়েবসাইট।

You may also like

Leave a Comment


cheap mlb jerseyscheap nhl jerseyscheap jerseyscheap jerseyscheap jerseyscheap jerseyscheap jerseyscheap jerseyscheap jerseyscheap jerseys