বিজয় না হওয়া পর্যন্ত ঘরে ফেরা নয়: সিলেট জেলা ও মহানগর বিএনপি

by News Room

নিউজ ডেস্ক: সিলেট জেলা ও মহানগর বিএনপি নেতৃবৃন্দ বলেছেন, অবৈধ সরকারের নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাখ্যান করে দেশব্যাপী  রাজপথে জনতার জোয়ার শুরু হয়েছে। বাকশালীদের চুড়ান্ত পতন নিশ্চিত করে বিজয় না হওয়া পর্যন্ত গনতন্ত্রকামী জনতা ঘরে ফিরে যাবেনা। আপোষহীন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে অবরুদ্ধ, নিরীহ নেতাকর্মীদের গনগ্রেফতার আর সভা-সমাবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করে ফ্যাসীবাদের পতন ঠেকানো যাবেনা। ইতিহাস স্বাক্ষী ফ্যাসীবাদি ও স্বৈরাচারী সরকারের পরিনতি কোনদিন ভাল হয়নি।  আওয়ামী লীগকেও গনতন্ত্র হত্যার দায়ে কঠোর পরিনতি ভোগ করতে হবে। পূন্যভুমি সিলেটের জনগণ সরকারের কথিত নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাখ্যান করে রাজপথে নেমে এসে প্রমান করেছে আওয়ামী অবৈধ সরকারের নিষেধাজ্ঞা জনগণ মানেনা। গনগ্রেফতার ও অনৈতিক নিষেধাজ্ঞার গনতন্ত্রবিনাশী রাজনীতি পরিহার করে তত্ত¡াবধায়ক সরকার পুনর্বহাল করে পদত্যাগ করুন। অন্যথায় গনবিষ্ফোরনে পালানোর সকল পথ রুদ্ধ করা হবে।  নগরীর রংমহল পয়েন্টে সিলেট বিএনপির পুর্বনির্ধারিত সমাবেশ বানচাল করতেই সভা সমাবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি ও সিলেট জেলা ছাত্রদল নেতা আহমদ চৌধুরী ফয়েজ সহ নিরীহ ছাত্রদল নেতাকর্মীদের গ্রেফতার করে আওয়ামীলীগ সিলেটবাসীকে বিক্ষুব্ধ করেছে। এজন্য সরকারকে চরম মুল্য দিতে হবে। অবিলম্বে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে অবরুদ্ধ অবস্থা থেকে মুক্তি দিন এবং গ্রেফতারকৃত বিএনপি অঙ্গসংগঠনের নিরীহ নেতাকর্মীদের নিঃশর্ত মুক্তি দিতে হবে।  সোমবার ৫ জানুয়ারী গনতন্ত্র হত্যা দিবস উপলক্ষ্যে বিএনপির কেন্দ্রীয় কর্মসুচীর অংশ হিসেবে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে অবরুদ্ধ করে রাখা, বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব এডভোকেট রুহুল কবির রিজভীসহ দেশব্যাপী নিরীহ নেতাকর্মীদের  অন্যায়ভাবে গনগ্রেফতারের প্রতিবাদে সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের  নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাখ্যান করে সিলেট জেলা ও মহানগর বিএনপি নগরীতে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে।  মিছিলটি নগরীর সোবহানীঘাট পয়েন্ট থেকে শুরু হয়ে গুরুত্বপুর্ণ পয়েন্ট প্রদক্ষিণ করে রোজভিউ হোটেল সংলগ্ন পয়েন্টে গিয়ে সংক্ষিপ্ত সমাবেশের মধ্য দিয়ে সমাপ্ত হয়। মিছিল পরবর্তী সংক্ষিপ্ত সমাবেশে নেতৃবৃন্দ উপরোক্ত কথা বলেন।  সিলেট জেলা বিএনপির যুগ্ম আহŸায়ক আলী আহমদ এর সভাপতিত্বে জেলা বিএনপির যুগ্ম আহŸায়ক ও মহানগর বিএনপির সদস্য মিফতাহ সিদ্দীকির পরিচালনায় অনুষ্ঠিত মিছিল পরবর্তী সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন, জেলা বিএনপির যুগ্ম আহŸায়ক আব্দুল মান্নান, মহানগর বিএনপি সদস্য  এডভোকেট হাবীবুর রহমান হাবীব, মামুনুর রশীদ মামুন, ডা: নাজমুল ইসলাম, মাহবুব চৌধুরী, মামুনুর রহমান মামুন, সদর দক্ষিণ বিএনপির সাধারন সম্পাদক শামীম আহম ও সাংগঠনিক সম্পাদক বজলুর রহমান ফয়েজ, মহানগর বিএনপি নেতা মুহিবুর রহমান, আনোয়ার হোসেন মানিক, আফতার আহমদ, যুবদল নেতা রুহুর কুদ্দুল চৌধুরী হামজা, আব্দুল মালেক, শাহ মাহমুদ আলী, আশরাফ বাহার, মইনুল ইসলাম মঞ্জু, মোশতাক আহমদ, আশরাফ উদ্দিন আলিম, ফখরুল ইসলাম রুমেল, হোসেন আহমদ রুহুল, মঞ্জুর হোসেন মজনু, আজাদ আহমদ, হোসেন খান ইমাদ, রুমেল আহমদ, আরিফ খান জয়, রুহুল আমীন কালাম, হোসেন আহমদ রুহুল, মোক্তাদির খান, শাহীন আহমদ এমাদ, ছাত্রদল নেতা ছাত্রদল নেতা মোবারক হোসেন  তুহিন, সোহেল ইবনে রাজা, জুবায়ের আহমদ লিলু, আতাউর রহমান, সুমন আহমদ বিপ্লব,আজিজুর রহমান লায়েক, লোকমান আহমদ, আলী আহমদ, জমির আহমদ, জিয়াউল ইসলাম রাজন, জাবেদ আহমদ প্রমুখ।  সভাপতির বক্তব্যে জেলা বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আলী আহমদ বলেন, সরকারের কোন ষড়যন্ত্রই সফল হয়নি। অবৈধ নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাখ্যান করে জনগন ৫ জানুয়ারীর ঘৃনিত গনতন্ত্র হত্যা দিবস পালন করে দেশবাসী প্রমান করেছে আওয়ামী বাকশালীদের চুড়ান্ত ঘনিয়ে এসেছে। রংমহল পয়েন্টে সিলেট জেলা ও মহানগর বিএনপির পুর্বনির্ধারিত শান্তিপুর্ন সমাবেশ বানচাল করতেই সিলেটে সভ-সমাবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। সারাদেশের বিভিন্ন জেলায় বিরোধী রাজনৈতিক দলের শান্তিপুর্ন মিছিলে হামলা ও গুলি চালানোর নিন্দা জানাচ্ছি।  সিলেট জেলা ছাত্রদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি আহমদ চৌধুরী ফয়েজ সহ নিরীহ ছাত্রদল নেতাকর্মীদের গ্রেফতারের তীব্র নিন্দা জানিয়ে অবিলম্বে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে অবরুদ্ধ অবস্থা এবং আটক বিএনপি অঙ্গসংগঠনের নেতামকর্মীদের নিঃশর্ত মুক্তির দাবী জানান তিনি।

সিলেট জেলা ও মহানগর বিএনপি নেতৃবৃন্দ বলেছেন, অবৈধ সরকারের নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাখ্যান করে দেশব্যাপী  রাজপথে জনতার জোয়ার শুরু হয়েছে। বাকশালীদের চুড়ান্ত পতন নিশ্চিত করে বিজয় না হওয়া পর্যন্ত গনতন্ত্রকামী জনতা ঘরে ফিরে যাবেনা। আপোষহীন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে অবরুদ্ধ, নিরীহ নেতাকর্মীদের গনগ্রেফতার আর সভা-সমাবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করে ফ্যাসীবাদের পতন ঠেকানো যাবেনা। ইতিহাস স্বাক্ষী ফ্যাসীবাদি ও স্বৈরাচারী সরকারের পরিনতি কোনদিন ভাল হয়নি।

আওয়ামী লীগকেও গনতন্ত্র হত্যার দায়ে কঠোর পরিনতি ভোগ করতে হবে। পূন্যভুমি সিলেটের জনগণ সরকারের কথিত নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাখ্যান করে রাজপথে নেমে এসে প্রমান করেছে আওয়ামী অবৈধ সরকারের নিষেধাজ্ঞা জনগণ মানেনা। গনগ্রেফতার ও অনৈতিক নিষেধাজ্ঞার গনতন্ত্রবিনাশী রাজনীতি পরিহার করে তত্ত¡াবধায়ক সরকার পুনর্বহাল করে পদত্যাগ করুন। অন্যথায় গনবিষ্ফোরনে পালানোর সকল পথ রুদ্ধ করা হবে।

নগরীর রংমহল পয়েন্টে সিলেট বিএনপির পুর্বনির্ধারিত সমাবেশ বানচাল করতেই সভা সমাবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি ও সিলেট জেলা ছাত্রদল নেতা আহমদ চৌধুরী ফয়েজ সহ নিরীহ ছাত্রদল নেতাকর্মীদের গ্রেফতার করে আওয়ামীলীগ সিলেটবাসীকে বিক্ষুব্ধ করেছে। এজন্য সরকারকে চরম মুল্য দিতে হবে। অবিলম্বে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে অবরুদ্ধ অবস্থা থেকে মুক্তি দিন এবং গ্রেফতারকৃত বিএনপি অঙ্গসংগঠনের নিরীহ নেতাকর্মীদের নিঃশর্ত মুক্তি দিতে হবে।

সোমবার ৫ জানুয়ারী গনতন্ত্র হত্যা দিবস উপলক্ষ্যে বিএনপির কেন্দ্রীয় কর্মসুচীর অংশ হিসেবে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে অবরুদ্ধ করে রাখা, বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব এডভোকেট রুহুল কবির রিজভীসহ দেশব্যাপী নিরীহ নেতাকর্মীদের  অন্যায়ভাবে গনগ্রেফতারের প্রতিবাদে সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের  নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাখ্যান করে সিলেট জেলা ও মহানগর বিএনপি নগরীতে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে।

মিছিলটি নগরীর সোবহানীঘাট পয়েন্ট থেকে শুরু হয়ে গুরুত্বপুর্ণ পয়েন্ট প্রদক্ষিণ করে রোজভিউ হোটেল সংলগ্ন পয়েন্টে গিয়ে সংক্ষিপ্ত সমাবেশের মধ্য দিয়ে সমাপ্ত হয়। মিছিল পরবর্তী সংক্ষিপ্ত সমাবেশে নেতৃবৃন্দ উপরোক্ত কথা বলেন।

সিলেট জেলা বিএনপির যুগ্ম আহŸায়ক আলী আহমদ এর সভাপতিত্বে জেলা বিএনপির যুগ্ম আহŸায়ক ও মহানগর বিএনপির সদস্য মিফতাহ সিদ্দীকির পরিচালনায় অনুষ্ঠিত মিছিল পরবর্তী সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন, জেলা বিএনপির যুগ্ম আহŸায়ক আব্দুল মান্নান, মহানগর বিএনপি সদস্য  এডভোকেট হাবীবুর রহমান হাবীব, মামুনুর রশীদ মামুন, ডা: নাজমুল ইসলাম, মাহবুব চৌধুরী, মামুনুর রহমান মামুন, সদর দক্ষিণ বিএনপির সাধারন সম্পাদক শামীম আহম ও সাংগঠনিক সম্পাদক বজলুর রহমান ফয়েজ, মহানগর বিএনপি নেতা মুহিবুর রহমান, আনোয়ার হোসেন মানিক, আফতার আহমদ, যুবদল নেতা রুহুর কুদ্দুল চৌধুরী হামজা, আব্দুল মালেক, শাহ মাহমুদ আলী, আশরাফ বাহার, মইনুল ইসলাম মঞ্জু, মোশতাক আহমদ, আশরাফ উদ্দিন আলিম, ফখরুল ইসলাম রুমেল, হোসেন আহমদ রুহুল, মঞ্জুর হোসেন মজনু, আজাদ আহমদ, হোসেন খান ইমাদ, রুমেল আহমদ, আরিফ খান জয়, রুহুল আমীন কালাম, হোসেন আহমদ রুহুল, মোক্তাদির খান, শাহীন আহমদ এমাদ, ছাত্রদল নেতা ছাত্রদল নেতা মোবারক হোসেন  তুহিন, সোহেল ইবনে রাজা, জুবায়ের আহমদ লিলু, আতাউর রহমান, সুমন আহমদ বিপ্লব,আজিজুর রহমান লায়েক, লোকমান আহমদ, আলী আহমদ, জমির আহমদ, জিয়াউল ইসলাম রাজন, জাবেদ আহমদ প্রমুখ।

সভাপতির বক্তব্যে জেলা বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আলী আহমদ বলেন, সরকারের কোন ষড়যন্ত্রই সফল হয়নি। অবৈধ নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাখ্যান করে জনগন ৫ জানুয়ারীর ঘৃনিত গনতন্ত্র হত্যা দিবস পালন করে দেশবাসী প্রমান করেছে আওয়ামী বাকশালীদের চুড়ান্ত ঘনিয়ে এসেছে। রংমহল পয়েন্টে সিলেট জেলা ও মহানগর বিএনপির পুর্বনির্ধারিত শান্তিপুর্ন সমাবেশ বানচাল করতেই সিলেটে সভ-সমাবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। সারাদেশের বিভিন্ন জেলায় বিরোধী রাজনৈতিক দলের শান্তিপুর্ন মিছিলে হামলা ও গুলি চালানোর নিন্দা জানাচ্ছি।

সিলেট জেলা ছাত্রদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি আহমদ চৌধুরী ফয়েজ সহ নিরীহ ছাত্রদল নেতাকর্মীদের গ্রেফতারের তীব্র নিন্দা জানিয়ে অবিলম্বে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে অবরুদ্ধ অবস্থা এবং আটক বিএনপি অঙ্গসংগঠনের নেতামকর্মীদের নিঃশর্ত মুক্তির দাবী জানান তিনি। – See more at: http://www.sylhetview24.com/news/details/Sylhet/20664#sthash.uu3QJO6P.dpuf

You may also like

Leave a Comment


cheap mlb jerseyscheap nhl jerseyscheap jerseyscheap jerseyscheap jerseyscheap jerseyscheap jerseyscheap jerseyscheap jerseyscheap jerseys