বিএনপি জামায়াত জোট দেশে জঙ্গিবাদ কায়েম করেছিল: মিসবাহ

by News Room

সিলেটের খবর ডেস্ক: আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ বলেছেন, হাজার বছরের শ্রেষ্ট বাঙগালী, বিশ্বের শোষিত মানুষের নেতা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সহ পরিবারে হত্যা করে খুনিরা ভেবেছিল এ দেশে শাসকের রাজত্ব কায়েম করবে। ৩০ বছর ৭১’র পরাজিত শক্তি ও ৭৫’র খুনিরা দেশের সম্পদ বিদেশে পাচার করেছিল। দেশের অর্থনীতি ভেঙ্গে পড়েছিল। আইন-শৃঙ্খলা চরম অবনতি হয়েছিল। আমেরিকার মদদে বিএনপি জামায়াত জোট দেশে জঙ্গিবাদ কায়েম করেছিল। বৃহস্পতিবার দুপুরে ইসলামী ফাউন্ডেশন সিলেটের উদ্যোগে পুলিশ লাইসস্থ শহীদ এসপি সামছুল হক মিলনায়তনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৩৯তম শাহাদত বার্ষীকি ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা, শোকগাঁথা, হামদ-না’ত ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।
মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ আরো বলেন, পলাশি’র প্রান্তরে মিরজাফর সিরাজ-উ-দৌল্লার সাথে বিশ্বাস ঘাতকতা করে ইতিহাসে মিরজাফর নাম লিখিয়ে ছিলো। আর জিয়া-খালেদা-তারেক খুনি হিসেবে হাজার বছর ধিক্ষিত হবেন জনতার কাছে।
তিনি বলেন, বিএনপি জামায়াত জোট ক্ষমতায় বসে জঙ্গি তৎপরাতা চালানোর জন্য ১০ ট্রাক অস্ত্র এনেছিলেন। তাদের মদদে সারা দেশে এক যোগে জঙ্গিরা বোমা হামলা চালিয়ে ছিলো। ২১ আগস্ট দেশে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যা করার জন্য গ্রেনেড হামলা চালানো হয়েছিলো। ব্রিটিশ রাষ্ট্রদূত আনোয়ার চৌধূরীসহ সারা দেশের জঙ্গি হামলা হয়েছিলো। বর্তমান সরকার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশকে এগিয়ে নিচ্ছেন। ২০৪১ এর মধ্যে দেশ হবে সর্ব ক্ষেত্রে স্বয়ং সম্পন্ন। আর আপনারা ইমামরা জনগনের কাছে সত্যকথা তুলে ধরে সর্বাত্ত্বক সহযোগিতা করবেন সরকারকে।
প্রধান বক্তার বক্তব্যে ইসলামী ফাউন্ডেশনের গর্ভনর ও বাংলাদেশ ইসলামী ঐক্য জোটের চেয়ারম্যান মিসবাহুর রহমান চৌধুরী বলেছেন, বঙ্গবন্ধু আর শেখ হাসিনা মুসলমান ও ইসলামের জন্য যা করেছেন আর কোন সরকার তা করেনি। তিনি বলেন, জামায়াত-শিবির আমেরিকার টাকা খেয়ে ইসলাম এবং মুসলমাদের ক্ষতি করছে। তারা জঙ্গিবাদ লালন করে। তাদের পরিচালিত প্রতিষ্ঠানগুলোতে জঙ্গিরা আছে। কোন মসজিদ-মাদ্রাসায় জঙ্গিবাদ নেই।
অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন- সিলেটের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) এজেড এম নূরুল হক। নজরুল ইসলামের পরিচালনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন- ইসলামী ফাউন্ডেশনের মহা পরিচালক শামীম মো. আফজাল, বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন- সদর উপজেলার চেয়ারম্যান আশফাক আহমদ, বাংলাদেশ কওমী মাদ্রাসা বোর্ডের মহাসচিব মাওলানা আব্দুল বাছিত বরকতপুরী, সিলেট জেলা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রওশুনুজামান সিদ্দিকী প্রমুখ।

You may also like

Leave a Comment


cheap mlb jerseyscheap nhl jerseyscheap jerseyscheap jerseyscheap jerseyscheap jerseyscheap jerseyscheap jerseyscheap jerseyscheap jerseys