প্রাথমিক শিার মান উন্নয়নে মা’দের ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ——-জাহানারা বেগম শ্যামা

by News Room

‘মা, মা, মা, মা-দের নিয়েই আজ এ সমাবেশ। মা’ শব্দটি অত্যন্ত ছোট একটি শব্দ। এ তাৎপর্য অনেক বড় এবং এর খ্যাতি দুনিয়া ব্যাপী। মাতৃ স্নেহের মতো নিষ্কুলুষ স্নেহ পৃথিবীতে আর নেই। প্রত্যেক মা’ই চায় তাদের সন্তানের সুখ-শান্তি, উন্নতি এবং অগ্রগতি। অষ্টম শ্রেণীতে উন্নীত পাঠানচক সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মার্জিত, জাকজমকপূর্ণ এবং আনন্দঘন এ মা’ সমাবেশে উপস্থিত হতে পেরে এবং বিপুল সংখ্যক মা’য়ের উপস্থিতি দেখে আমি অত্যন্ত আনন্দিত।  প্রাথমিক শিার মান উন্নয়নে এ সরকার বদ্ধপরিকর। ইতিমধ্যে ২৩ হাজারেরও বেশী বিদ্যালয় সরকারীকরণ, প্রধান শিকদের ২য় শ্রেণীর গেজেটেড অফিসারের মর্যাদা দান, শিকদের বেতন বৃদ্ধি ইত্যাদি তারই অংশ। শিার অবকাঠামোগত উন্নয়নের পাশাপাশি শিার মান উন্নয়নও একান্ত প্রয়োজন। প্রাথমিক শিার মান উন্নয়নে মা’দের ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ’।
গত শনিবার ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলাধীন অষ্টম শ্রেণীতে উন্নীত পাঠানচক সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মা’ সমাবেশে প্রধান অতিথির ভাষণে উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জাহানারা বেগম শ্যামা উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। বিদ্যালয়ের সহকারী শিক গৌরাঙ্গ চক্রবর্তীর সঞ্চালনায় এবং বিদ্যালয়ের প্রধান শিক ও সিলেটের জেলা কাব লিডার মো: জিয়াউল ইসলাম চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত মা’ সমাবেশে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা রিসোর্স সেন্টারের ভারপ্রাপ্ত প্রশিক মুহাম্মদ শাহ আলম। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বিদ্যালয়ের শিকিা লাকী রাণী দাস। মা’দের পে বক্তব্য রাখেন আনোয়ারা বেগম, মনোয়ারা বেগম এবং নাসিমা বেগম। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন এলাকার বিশিষ্ট মুরব্বী মো: আশিদ আলী, ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্র মো: রোমন আহমদ এবং ৭ম শ্রেণীর ছাত্রী রুলি বেগম।
প্রধান অতিথির ভাষণে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আরো বলেন, ‘এর আগে আমি আরো ৩ বার এ বিদ্যালয় পরিদর্শন করেছি। বর্তমান প্রধান শিক মো: জিয়াউল ইসলাম চৌধুরী এ বিদ্যালয়ে আসার পর ২/৩ বছরের মধ্যেই বিদ্যালয়ের আশাতীত উন্নতি সাধিত হয়েছে। বিদ্যালয়টিকে ‘এ’ গ্রেডে উন্নীত করা, বিভিন্ন ধরনের সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতায় বিদ্যালয়টিকে উপজেলা থেকে জাতীয় পর্যায়ে পর্যন্ত নিয়ে যাওয়া এবং লেখাপড়ায় বিদ্যালয় ইতিহাসে প্রথমবারের মতো জিপিএ-৫, সরকারী বৃত্তি প্রাপ্তিসহ বিদ্যালয়টিকে ৮ম শ্রেণীতে উন্নীত করা তারই আন্তরিক প্রচেষ্টার ফসল। এ জন্য আমি প্রধান শিক এবং বিশিষ্ট স্কাউট ব্যক্তিত্ব মো: জিয়াউল ইসলাম চৌধুরীকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি এবং উপস্থিত সকল মা’কে এ ব্যাপারে তাঁকে সর্বাত্মক সহযোগিতা করার জন্য অনুরোধ জানাচ্ছি’। বিদ্যালয়টিকে ৬ষ্ঠ শ্রেণীতে ভর্তির অনুমতি দেয়ার সাথে সাথেই গত বছর মার্চ মাসে শিা অধিদপ্তর থেকে দু’জন বিএড শিক পদায়নের নির্দেশ থাকা সত্ত্বেও এখন পর্যন্ত কোন বিএড শিক এ বিদ্যালয়ে পদায়ন না করায় তিনি গভীরভাবে ােভ প্রকাশ করেন। তিনি অতিসত্ত্বর  এ বিদ্যালয়ে ৬ষ্ঠ এবং ৭ম শ্রেণীর ছাত্রছাত্রীদের স্বার্থে বিএড শিক পদায়নের জন্য আহবান জানান।

You may also like

Leave a Comment


cheap mlb jerseyscheap nhl jerseyscheap jerseyscheap jerseyscheap jerseyscheap jerseyscheap jerseyscheap jerseyscheap jerseyscheap jerseys