ডিসি অফিসে ঠিক হয় কে কত ভোটে এমপি হবেন- সুলতান মনসুর

by News Room

সিলেটের খবর ডেস্ক:গত ৫ জানুয়ারি নির্বাচনকে ‘সার্কাস’ আখ্যা দিয়ে সাবেক আওয়ামী লীগ নেতা সুলতান মনসুর বলেছেন, ‘জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে বসে নেতারাই ঠিক করেছেন, কোন আসনে কে কত ভোটে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হবেন।’

 

রাজনীতিতে ফেরার ঘোষণা দিয়ে শুক্রবার সিলেটে এক সংবাদ সম্মেলন এ সব কথা বলেন তুখোড় এই রাজনৈতিক নেতা।

 

সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আওয়ামী লীগের সাবেক কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক। ঢাকসু’র সাবেক ভিপি। তিনি ছাত্রলীগের সভাপতিও ছিলেন।

 

সুলতান মনসুর বলেন, ‘মুজিব কোট ছাড়বো না। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ থেকেও বিচ্যুত হবো না। আওয়ামী লীগের সুলতান মনসুর হয়েই থাকবো। তবে, রাজনীতি থেকে আর নির্বাসনে থেকে নয়। আওয়ামী লীগের সুলতান মনসুর হয়ে জাতীয় ঐক্যের ডাক’র সঙ্গে যুক্ত হয়েছি।’

 

তিনি বলেন, ‘দীর্ঘ ৮ বছর ধরে আমাকে রাজনৈতিক কারাগারে বন্দি রাখা হয়েছে, অথবা নির্বাসনে পাঠানো হয়েছে। আর এর মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে- আমার জনপ্রিয়তায় ধস নামানো। কিন্তু অনেক অপেক্ষা করেছি, আর নয়।’

 

সাবেক এই আওয়ামী লীগ নেতা বলেন, ‘৫ জানুয়ারির অনৈতিক নির্বাচনের জন্য স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলন করিনি। ওই নির্বাচন সার্কাস মার্কা নির্বাচন। ওই নির্বাচনে জনগণের রায়ের প্রতিফলন ঘটেনি। ১৫৪টি আসনেই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় প্রতিনিধিরা পাস করেছে। আর বাকিগুলোতে হয়েছে লোক দেখানো নির্বাচন।’

 

বর্তমান সরকারকে অবৈধ উল্লেখ করে তিনি বলেন, পঞ্চদশ সংশোধনীর মাধ্যমে যে নির্বাচন হয়েছে তা মানুষ আশা করেনি। এই সংশোধনীর মাধ্যমে মানুষের ভোট দেয়ার স্বাধীনতা খর্ব করা হয়েছে।

 

সুলতান মনসুর বলেন, ‘৫ জানুয়ারির নির্বাচনের আইনগত বৈধতা থাকলেও এটা একটি সার্কাস মার্কা নির্বাচন ছিল। দেশের বেশির ভাগ মানুষ তাদের ভোট দেয়ারই সুযোগ পাননি। জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে বসে নেতারাই ঠিক করেছেন কোন আসনে কে কত ভোটে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হবেন।’

 

সরকার ও আওয়ামী লীগের সমালোচনা করে তিনি বলেন, ‘অনেকেই মনে করেন, মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ দল ক্ষমতায় রয়েছে। কিন্তু বাস্তবতা হচ্ছে ভিন্ন। ক্ষমতাসীন দল নিজেদেরকে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের দাবি করলেও তারা কখনও মুক্তিযুদ্ধের সর্বাধিনায়ক এমএজি ওসমানী বা প্রথম প্রধানমন্ত্রী বঙ্গতাজ তাজউদ্দিন আহমদের জন্মবার্ষিকী পালন করেনি।’

 

সাবেক এই আওয়ামী লীগ নেতা জানান, গত ৩ সেপ্টেম্বর গণফোরাম, জাসদ (রব), কমিউনিস্ট পার্টি, বাসদ (খালেকুজ্জামান) ও নাগরিক ঐক্যের সমন্বয়ে ঢাকায় যে কনভেনশন হয়েছে সেখানে তিনি আওয়ামী লীগের সুলতান মনসুর হিসেবেই অংশ নিয়েছিলেন। আপাতত তিনি ওই ঐক্যের সঙ্গেই রাজনীতিতে সক্রিয় থাকবেন।

You may also like

Leave a Comment


cheap mlb jerseyscheap nhl jerseyscheap jerseyscheap jerseyscheap jerseyscheap jerseyscheap jerseyscheap jerseyscheap jerseyscheap jerseys